বিষয়বস্তু

পেনসনের পেনসন

পেনসনের পেনসন তখনকার ছোটলাট স্যার এসলে ইডেন বঙ্কিমচন্দ্রকে বড়ই স্নেহ করতেন। দুজনের মধ্যে মাঝে মাঝেই রঙ্গ রসিকতা চলতো। একদিন ইডেন সাহেব বঙ্কিমচন্দ্ৰকে ডেকে জিগ্যেস করলেন, ‘বঙ্কিমবাবু আপনার পিতা কি আজও জীবিত আছেন?’ বঙ্কিমচন্দ্ৰ বলেন, ‘হ্যাঁ সাহেব, আছেন।’ ইডেন সাহেব...

কপালকুণ্ডলার জন্ম-কথা

কপালকুণ্ডলার জন্ম-কথা সাহিত্য সম্রাট বঙ্কিমচন্দ্র তখন খুলনায় বদলি। একদিন তাঁর খুলনার বাড়িতে আড্ডায় মেতেছেন সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায় দীনবন্ধু মিত্র ও শচীশ চট্টোপাধ্যায় প্রমুখ। আড্ডার আসরে আলোচনায় উঠে আসছে সাম্প্রতিক সাহিত্য প্রসঙ্গ। বঙ্কিমচন্দ্র এমন সময় তাঁদের প্রশ্ন...

কলসী ও দড়ি

কলসী ও দড়ি বঙ্কিমচন্দ্র তখন হুগলী জেলার ডেপুটি ম্যাজিষ্ট্রেট। তিনি সপরিবারে থাকেন চুঁচড়ায় ভূদেব মুখোপাধ্যায়ের বাড়ির কাছে একটা বাড়ি ভাড়া নিয়ে। তাই নিয়মিত বঙ্কিমচন্দ্ৰ ভুদেবের বাড়িতে আড্ডা দিতে যেতেন। এমনই একদিন দুজনের খোশগল্প হচ্ছে। এমন সময় বাঁশবেড়ে বা বংশবাটির...

কবি-সাহিত্যিক-সম্পাদক

কবি-সাহিত্যিক-সম্পাদক নৈহাটিতে সাহিত্যসম্রাট বঙ্কিমচন্দ্রের সঙ্গে আলাপ করতে এসেছেন কবি নবীনচন্দ্ৰ সেন। সঙ্গে এসেছেন ‘সাধারণী’ পত্রিকার সম্পাদক অক্ষয় সরকার। বঙ্কিমচন্দ্রের অপেক্ষায় বৈঠকখানায় দুজন বসে। বঙ্কিমচন্দ্রের অগ্রজ সঞ্জীবচন্দ্র ঘরে বসে। এমন সময় একজন দিব্যাকান্তি...

চন্দ্র-চন্দ্র-চন্দ্র

চন্দ্র-চন্দ্র-চন্দ্র বঙ্কিমচন্দ্র একদিন গল্প করছিলেন আর এক ‘চন্দ্ৰ’ কৈকালার চন্দ্ৰনাথ বসুর সঙ্গে। দুই ‘চন্দ্র’-এর খোশগল্প যখন জমে উঠেছে তখন আর এক চন্দ্রের প্রবেশ। তিনি সাহিত্যিক চন্দ্ৰশেখর মুখোপাধ্যায়। চন্দ্রনাথ ও চন্দ্ৰশেখরের ইতিপূর্বে আলাপ ছিল না। এই দায়িত্ব নিতে...

চিড়িতনের টেক্কা

চিড়িতনের টেক্কা বঙ্কিমচন্দ্র একদিন তার সুন্দরী স্ত্রীকে নিয়ে ট্রেনে চেপে যাচ্ছিলেন। বঙ্কিমচন্দ্ৰ লক্ষ্য করলেন প্রত্যেক স্টেশনে যখন ট্রেন থামছে, একজন কৃষ্ণকায় কেঁকড়ানো বঁকড়া চুলওয়ালা যুবক তঁদের কামরার কাছে এসে তার স্ত্রীর দিকে ঘুরে ফিরে দেখে যাচ্ছে। শেষমেষ...

দক্ষিণা

দক্ষিণা বঙ্কিমচন্দ্র ও তাঁর দুই ভাই একবার দিগম্বর বিশ্বাসের বাড়িতে নিমন্ত্রণ রক্ষণ করতে যান। দিগম্বরের স্ত্রীর সাবিত্রী ব্ৰত উপলক্ষে এই ব্ৰাহ্মণ নিমন্ত্রণ। গৃহকর্তা দিগম্বর যত্নসহকারে ভোজন করালেন বঙ্কিমচন্দ্র ও তাঁর ভাইদের। ভোজনাস্তে তৃপ্ত বঙ্কিমচন্দ্ৰ হাত মুখ ধুয়ে...

বাগবাজারের মেথরানী

বাগবাজারের মেথরানী বঙ্কিমচন্দ্র কর্মসূত্রে বারুইপুরে বদলি হয়ে আসার পর তার বাসায় নিয়মিত আসতেন নাট্যকারী দীনবন্ধু মিত্র ও তৎকালীন চব্বিশ পরগণার অ্যাসিসটেন্ট ডিস্ট্রিক্ট সুপারিনটেনডেন্ট জগদীশ চন্দ্র রায়। তাঁরা এলে কয়েকদিন হৈহুল্লোড়, আমোদ আহ্লাদ, খানাপিনা চলত। তখন...

সাক্ষী

সাক্ষী বঙ্কিমচন্দ্র ছিলেন একজন ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট। তবে বিচারকের আসনে বসলেও তিনি রসিকতা করতে ছাড়তেন না। একবার একজন ব্যক্তি অন্য এক ব্যক্তির নামে আদালতে নালিশ করে যে, সে জানলা খুলে প্রতিদিন তার স্ত্রীর প্রতি দৃষ্টিনিক্ষেপ করে। মামলা উঠেছে বঙ্কিমচন্দ্রের এজলাসে।...

বুটের ঠোক্কর

বুটের ঠোক্কর বঙ্কিমচন্দ্রের মতোই তাঁর সুহৃদ, অধর সেনও ছিলেন ডেপুটি ম্যাজিষ্ট্রেট। অধর সেন ছিলেন শ্ৰীরামকৃষ্ণের ভক্ত। বঙ্কিমচন্দ্রেরও ইচ্ছা ছিল একবার শ্ৰীরামকৃষ্ণের দর্শনলাভ করেন। একদিন শ্ৰীরামকৃষ্ণ স্বয়ং এসেছেন অধর সেনের বেনিয়াটোলার গৃহে। খবর পেয়ে বঙ্কিমচন্দ্ৰ লোভ...

হাফটোন ছবি

হাফটোন ছবি রামতনু লাহিড়ী ছিলেন ডিরোজিওর ইয়ং বেঙ্গল-এর অন্যতম সদস্য ও জ্ঞানান্বেষণ সমিতির সম্পাদক। সেই সময় সমাজে তার যথেষ্ট প্রভাব ছিল। তার পুত্ৰ শরৎকুমার লাহিড়ী ছিলেন প্রখ্যাত পুস্তক প্রকাশক। শরৎকুমারের প্রকাশনের একটি গ্রন্থে বঙ্কিমচন্দ্রের একটি হাফটোন ছবি প্রকাশ...

হস্তিমূর্খ

হস্তিমূর্খ নাট্যকার দীনবন্ধু মিত্র একবার এসেছেন বঙ্কিমচন্দ্রের কাঁঠালপাড়ার বাড়িতে। দুই সাহিত্যিকের সম্পর্ক ছিল রঙ্গ রসিকতা-ঠাট্ট তামাসার। বঙ্কিমচন্দ্র একদিন মজা করে একটা ছোট টুকরো কাগজে কী একটা লিখে দীনবন্ধুর অজান্তে তাঁর জামার পিছনে আঠা দিয়ে লাগিয়ে দিলেন। সেই...

মুখের মত বঙ্কিমচন্দ্রের বিশেষ ঘনিষ্ঠ ছিলেন বিখ্যাত ‘নীলদর্পণ’ নাটকের লেখক দীনবন্ধু মিত্র। দীনবন্ধু ছিলেন সরকারি সুপার নিউমারি ইন্সপেকটিং পোস্টমাস্টার। চাকরির সুবাদে তাকে নানা জায়গায় যেতে হত। একবার তিনি গেছেন। আসামের কাছাড়ে। সেখান থেকে একজোড়া কাপড়ের জুতো কিনে...

বেয়াই-বেয়াই

বেয়াই-বেয়াই বঙ্কিমচন্দ্র একবার এসেছেন সাহিত্যিক দামোদর মুখোপাধ্যায়ের বাড়িতে। বঙ্কিমচন্দ্র যেখানে তঁর ভক্তের দল সেখানে। অর্থাৎ দামোদরের বাড়িতে সাহিত্যিকদের নিয়ে বসল একটি জমজমাট আডিড। সবাই যে যার চাটি-জুতো খুলে রেখেছেন ঘরের বাইরে। বঙ্কিমচন্দ্র ছিলেন সৌখিন ব্যক্তি।...

সংহার

সংহার বঙ্কিমচন্দ্রের বিখ্যাত উপন্যাস ‘কপালকুণ্ডলা’-র উপসংহার হিসাবে সাহিত্যিক দামোদর মুখোপাধ্যায়। ‘মৃন্ময়ী’ নামের একটি উপন্যাস রচনা করেন। অতি নিম্নমানের রচনাশৈলী ছিল উপন্যাসটির। বঙ্কিমচন্দ্ৰ স্বয়ং উপন্যাসটি পাঠ করেছিলেন। একদিন এক সাহিত্যসভায় দামোদরের সঙ্গে দেখা...

চিরকুট

চিরকুট বঙ্কিমচন্দ্ৰ এক সকালে বসে একটি উপন্যাস রচনা করছেন। একজন বিলেত ফেরত বাঙালি সাহেব তখন বঙ্কিমচন্দ্রের বাড়িতে এসে বাড়ির এক কাজের লোকের হাতে একটা ছোট কাগজ দিলেন এবং সেটা বঙ্কিমচন্দ্রের কাছে পৌঁছে দিতে বললেন। কাজের লোক সঙ্গে সঙ্গে সেই কাগজ বঙ্কিমচন্দ্রের হাতে...

ঘোমটা

ঘোমটা সাহিত্য সম্রাট বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় একবার তার দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রীকে নিয়ে চলেছেন ট্রেনে করে। তাঁর স্ত্রী ছিলেন পরমা সুন্দরী। ট্রেনের কামরায় রয়েছেন অনেক লোক জন। বঙ্কিমচন্দ্রের স্ত্রী ঘোমটায় ঢেকে রেখেছেন তাঁর মুখ। তখনকার দিনে বিবাহিতা রমনীরা মুখে ঘোমটা...

স্বার্থপর

স্বার্থপর একদিন শ্ৰীরামকৃষ্ণদেবকে তঁর ভক্তরা বললেন, ‘ঠাকুর, স্বার্থপর লোকদের সম্পর্কে কিছু বলুন’। শ্ৰীরামকৃষ্ণ ভক্তদের হাসতে হাসতে রসিকতা করে বললেন, ‘বুঝলি, স্বার্থপর লোকেরা সমাজে অজ্ঞানই থেকে যায়। কী করে তাদের ঈশ্বরচিন্তা হবে? স্বার্থপর লোক এমন কিছুই করবে না, যাতে...

ছাগল পোষা

ছাগল পোষা সেই সবে মাত্র নববিধান ব্ৰাহ্মসমাজের প্রতিষ্ঠা করেছেন ব্ৰহ্মানন্দ কেশবচন্দ্ৰ সেন। সেই ডালপালা মেলতে শুরু করেছে ব্ৰাহ্মসমাজ। কেশবচন্দ্রের ওই সঙেঘ ছিল অনেক পুরুষ সদস্য। সংখ্যায় কম হলেও পাশাপাশি কিছু মহিলা সদস্যাও ছিল ওই সঙেঘ। এদের নিয়েই কাজকর্ম এগোচ্ছিল...

সমাধি / শব্দ

সমাধি / শব্দ একদিন শ্রীরামকৃষ্ণ পরমহংসদেবের ভক্তরা তাঁরা কাছে জানতে চাইলেন, ‘ঠাকুর সমাধি কী করে হয়?' ভক্তদের কৌতূহল দেখে শ্রীরামকৃষ্ণদেব ব্যাখ্যা করে বললেন, ‘আমরা দেখতে পাই প্রথম প্রথম সব কমেই খুব হই চাই। যত ঈশ্বরের প্রতি এগুবে, ততই কমতে থাকবে কর্ম। শেষে কর্ম ত্যাগ...

Page 1 of 24312345...102030...Last »

অলটাইম হিট