ময়ান

বিদ্যালয় পরিদর্শক বিদ্যাসাগর একবার গ্রামের এক বিদ্যালয় পরিদর্শন করতে গেছেন। সেখানে এক সাধারণ মধ্যবিত্ত গৃহস্থ বিদ্যাসাগরকে তাঁর গৃহে দুপুরের আহার করবার নিমন্ত্রণ জানালেন। গৃহন্থের অনুরোধ উপেক্ষা করতে পারলেন না বিদ্যাসাগর। তিনি নিমন্ত্রণ গ্রহণ করলেন ও খেতে বসে রান্নার প্রতিটি পদের প্রশংসা করতে লাগলেন। মধ্যবিত্ত গৃহস্থ এতে আনন্দ পেলেন। এই সময় উপস্থিত ওই গ্রামেরই এক বিত্তশালী ব্যক্তি। তিনিও পরে বিদ্যাসাগরকে খাওয়ার জন্য নিমন্ত্রণ করলেন। নানা সুস্বাদু পদের খাদ্যসামগ্ৰী দিয়ে আপ্যায়ণ করা হল বিদ্যাসাগরকে। মুখ বুজে বিদ্যাসাগর খেয়ে গেলেন, কিন্তু প্ৰশংসা করলেন না কোনো খাবারের। বিত্তশালী ব্যক্তিটি বিদ্যাসাগরকে জিগ্যেস করলেন, ‘বিদ্যাসাগরমশাই, রান্না কেমন হয়েছে বললেন না। তো ?’

বিদ্যাসাগর মুখ ধুতে ধুতে কুলকুচি করতে করতে বললেন, ‘রান্না ভালেই হয়েছে, তবে ময়ান কম হয়েছে।’

মুখ মুছে হাসতে হাসতে বিদ্যাসাগর বললেন, ‘মনের ময়ান।’

বিত্তশালী ভদ্রলোক তাঁর ক্ৰটি বুঝতে পারলেন।

%d bloggers like this: