শহরের বামুনপাড়া

দীর্ঘদিন ইউরোপে থাকার পর মধুসূদন ১৮৬৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম দিকে কলকাতায় ফিরে আসেন। কলকাতায় এসে কবি গবৰ্ণমেন্ট হাউসের পশ্চিম দিকে ব্যয়বহুল স্পেনসেস হােটেলে বাসস্থান ঠিক করেন। এই হােটেলে তিনি ছিলেন প্রায় আড়াই বছরের মত। কলকাতায় আসার কিছুদিন পর মধুসূদনের সঙ্গে হঠাৎ দেখা হল তার এক পুরাতন সুহৃদের সঙ্গে। বহুদিন পর দু’জনের দেখা। নানা কথাবার্তার পর বন্ধুটি কবিকে জিগ্যেস করলেন, ‘কোথায় বাসা নিয়েছ ?’

রসিক মধুসূদন রসিকতা করে বললেন, ‘বামুনপাড়ায়।’

এই কথা শুনে অবাক বন্ধু প্রশ্ন করলেন, ‘বামুনপাড়ায়! সে আবার কী হে বন্ধু ?’ ভানভনিতা দূর করে মধুসূদন এবার বললেন, ‘গ্রামে যে পাড়া সকল পাড়ার মাথা, সেই পাড়াকে বলে বামুনপাড়া। এদিকে কলকাতার মধ্যে সাহেব পাড়াই হল শহরের মাথা। তাই শহরের বামুনপাড়া হল সাহেবপাড়া। সেই পাড়াতেই আমি বাসা নিয়েছি।’ কবির কথা শুনে বন্ধু হােঃ হেঃ করে হেসে উঠলেন।

%d bloggers like this: