সর্দারজি : Tag

দাঁতটা খুঁজছি

একের পর এক প্রচণ্ড গতির বলে ধরাশায়ী হচ্ছিলেন ব্যাটসম্যান, সর্দারজি। একটা বল বেচারার মুখে লাগে, তো আরেকটা লাগে বুকে। একটা মাথায়, আরেকটা পেটে। মার খেয়ে খেয়ে একসময় কোনোমতে আউট হয়ে জান বাঁচালেন তিনি। খেলা শেষে সর্দারজিকে দেখা গেল, পিচের ওপর দাঁড়িয়ে মনোযোগ দিয়ে কী যেন পর্যবেক্ষণ করছেন। গ্রাউন্ডসম্যান বললেন, ‘বাহ! সর্দারজি এখনই পরবর্তী ম্যাচের জন্য […]

গাড়ি তো ডিম দেয় না

নিজের দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া গাড়িটার পাশে বসে বিলাপ করে কাঁদছিল সর্দারজি, ‘আমার মুরগিটার কী হলো গো! আমার সুন্দর লাল মুরগি!’ এক পথচারী দেখে থমকে গেলেন। বললেন, ‘সে কী সর্দারজি! আপনার এত দামি গাড়ির এই হাল হলো কী করে?’ ‘আর বলবেন না, গাড়িটা রাস্তার পাশে রেখে আমি গিয়েছিলাম একটু দোকানে। কথা নেই বার্তা নেই, এক ট্রাকড্রাইভার তার […]

রিওয়াইন্ড মুড

সর্দারজি একদিন বলছেন তাঁর বন্ধুকে—জানিস, বউয়ের সঙ্গে ঝগড়া হলে আমি কী করি? বন্ধু: কী করিস? সর্দারজি: আমাদের বিয়ের ভিডিও দেখি। বন্ধু: কেন? সর্দারজি: কারণ, আমি ভিডিওটা ‘রিওয়াইন্ড’ মুডে দেখি। সবকিছু উল্টো হতে থাকে। আমার স্ত্রী হাত থেকে আংটি খুলে ফেলে, আমাকে রেখে গাড়িতে উঠে চলে যায়। দেখতে বড় ভালো লাগে!

এয়ারকন্ডিশনারের প্লাগ

সর্দারজি ফোন করলেন এয়ারকন্ডিশনার সারাইয়ের দোকানে। বললেন, কী মুশকিল বলুন তো, আমার এয়ারকন্ডিশনারটা সকাল থেকে কাজ করছে না। দোকানদার বললেন, এক কাজ করুন। এয়ারকন্ডিশনারের প্লাগটা খুলে আমার কাছে নিয়ে আসুন। কিছুক্ষণ পর সর্দারজি দোকানে হাজির হলেন, হাতে এয়ারকন্ডিশনারের প্লাগ!

সর্দারজি গেছেন দোকানে

সর্দারজি: দোকানদার ভাই, আপনার দোকানে ভালো সাবান আছে? দোকানদার: অবশ্যই আছে। সর্দারজি: ভালোমতো হাত পরিষ্কার হয় তো? দোকানদার: অবশ্যই হয়। সর্দারজি: জীবাণু থেকে যায় না তো? দোকানদার: না। সর্দারজি: ঠিক আছে। সাবান দিয়ে ভালোমতো হাত ধুয়ে এক কেজি আটা দিন।

বাচ্চার কথা রেকর্ড

সর্দারজি তাঁর এক বছর বয়সী ছোট্ট শিশুটির আধো আধো বোল রেকর্ড করে রাখছিলেন। সর্দারজির বন্ধু: সে কী, এইটুকুন বাচ্চার কথা রেকর্ড করছ কেন? সর্দারজি: বড় হলে জিজ্ঞেস করব, ও আসলে কী বলতে চাইছিল!

ধরা পড়ে না গেলেই হয়

সর্দারজিকে বললেন তাঁর এক বন্ধু, ‘সর্দারজি, তুমি কি প্রেম করে বিয়ে করবে, নাকি বিয়ে করে প্রেম করবে?’ সর্দারজি বললেন, ‘অবশ্যই বিয়ে করে প্রেম করব। শুধু আমার স্ত্রীর কাছে ধরা পড়ে না গেলেই হয়!’

কোনার দিকের সিট

অফিসের বস সর্দারজিকে বললেন, ‘সর্দারজি, আমাকে একটা সাহায্য করুন। আমি আর আমার বান্ধবী কাল সিনেমা দেখতে যাব। আপনি কি আজ আমাদের জন্য দুটো টিকিট কেটে রাখতে পারবেন?’ সর্দারজি: নিশ্চয়ই স্যার, আপনি টিকিট পেয়ে যাবেন। বস: ইয়ে মানে… একটু কোনার দিকের সিটের টিকিট কাটবেন। পরদিন সর্দারজি সিনেমা হলের দুই কোনার দুটো সিটের টিকিট বসের হাতে তুলে […]

প্রিয় রং হলুদ

সর্দারজির প্রেমিকা: তোমার হাসি আমার খুব প্রিয়। সর্দারজি: কেন? সর্দারজির প্রেমিকা: কারণ, হলুদ আমার প্রিয় রং!

প্রমাণিত

সর্দারজি একবার একটা মশার পাখা ছিঁড়ে ফেললেন। তারপর চিৎকার করে বলতে লাগলেন, ‘উড়ে যা মশা, উড়ে যা!’ মশাটা তার জায়গায় অনড় পড়ে রইল। সর্দারজিকে বেশ সন্তুষ্ট দেখাল। একটা খাতায় তিনি লিখলেন, ‘অতএব, পাখা ছিঁড়ে ফেললে মশা কানে শোনে না। প্রমাণিত।’

হেলমেট কোথায়

সর্দারজি ট্রাফিক পুলিশের চাকরি নিয়েছেন। এক চালককে মাঝপথে আটক করলেন তিনি। সর্দারজি: এই! তোমার হেলমেট কোথায়? চালক: আরে বেকুব, ভালো করে দেখো। সর্দারজি: ভালো করে দেখব আবার কী? স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি তুমি হেলমেট পরোনি। চালক: ওপরে নয়, নিচে দেখো। এটা দুই চাকা নয়, চার চাকার গাড়ি। গর্দভ!

আমার ভয় করে

সর্দারজির স্ত্রী: কী হলো, দরজার সামনে অমন ঠায় দাঁড়িয়ে আছো কেন? সর্দারজি: বাঘ শিকারে যাব। সর্দারজির স্ত্রী: তো যাও। সর্দারজি: কিন্তু দরজার বাইরে একটা কুকুর বসে আছে, আমার ভয় করে!

এক ঘণ্টা আগে

হাসপাতালের চিকিৎসকের দায়িত্বে আছেন সর্দারজি। হন্তদন্ত হয়ে একদল লোক এল হাসপাতালে। বলল, ‘আমাদের ঝন্টুকে বাঁচান।’ সর্দারজি ঝন্টুকে পরীক্ষা করলেন। বললেন, ‘আমি দুঃখিত। রোগীকে হাসপাতালে আনতে আপনারা বড্ড দেরি করে ফেলেছেন। এক ঘণ্টা আগে নিয়ে আসতে পারলে আমরা একটা কিছু করতে পারতাম। রোগীর আত্মীয়: আরে বুদ্ধু, ১৫ মিনিট আগে অ্যাকসিডেন্ট হলো, এক ঘণ্টা আগে আনব কী […]

আমাকে স্মরণ করুন

সর্দারজি একটা গাধা বিক্রি করবেন। পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে গিয়ে ভাবলেন, একেবারে সাদামাটা ভাষায় না লিখে একটু কাব্যিক ভাষায় লেখা যাক! অতঃপর সর্দারজি লিখলেন, ‘কারও যদি গাধা প্রয়োজন হয়, আমাকে স্মরণ করুন।’

ভুলোমনা রোগ

সর্দারজি গেছেন ডাক্তারের কাছে। সর্দারজি: ডাক্তার সাহেব, আমার ভুলোমনা রোগটা মারাত্মক হয়ে উঠেছে। এই রোগের জন্য রাতে আমার ঘুমই হয় না। ডাক্তার: কেন? ভুলোমনা হওয়ার সঙ্গে রাতে ঘুম না হওয়ার কী সম্পর্ক? সর্দারজি: আমি যে চোখ বন্ধ করতে ভুলে যাই!

দমকলকর্মী

সর্দারজি বলছেন তাঁর এক বন্ধুকে, ‘জানিস, সেদিন দেখি একটা উঁচু ভবনে প্রচণ্ড আগুন লেগেছে।’ বন্ধু: তারপর? সর্দারজি: তারপর আর কি? আমি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ভবনের ভেতরে ঝাঁপিয়ে পড়লাম। একে একে কয়েকজনকে কাঁধে তুলে জলদি বেরিয়ে এলাম। বন্ধু: তারপর? সবাই নিশ্চয়ই তোকে খুব বাহবা দিল? সর্দারজি: না। পরে জানলাম, তাঁরা সবাই দমকলকর্মী ছিল!

ঘড়িটার দাম এক হাজার ডলার

ছুটিতে লন্ডন গেছেন সর্দারজি। রাস্তার পাশেই বিশাল বড় একটা দালান। দালানের মাথায় বড় একটা ঘড়ি। মুগ্ধ হয়ে ঘড়িটার দিকে তাকিয়ে ছিলেন তিনি। এমন সময় এক লোক এসে বলল, ‘আপনার বুঝি ঘড়িটা পছন্দ হয়েছে?’ সর্দারজি: নিশ্চয়ই নিশ্চয়ই! খুবই পছন্দ হয়েছে। লোক: ঘড়িটার দাম এক হাজার ডলার, কিনবেন? সর্দারজি: অবশ্যই। এই বলে সর্দারজি লোকটার হাতে এক হাজার […]

চেকবইয়ের সব পাতায় সই

সর্দারজি হন্তদন্ত হয়ে ঢুকলেন ব্যাংকে। কর্মকর্তাকে বললেন, ‘আমার এখনই টাকা তোলা দরকার। কিন্তু আমি প্রায় এক মাস আগে আমার চেকবই হারিয়ে ফেলেছি।’ কর্মকর্তা: এত দিন আগে চেকবই হারিয়েছেন, আর এখন এ কথা বলছেন? কেউ যদি আপনার সই নকল করে আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলে ফেলে? সর্দারজি: আমাকে কি এত বুদ্ধু ভেবেছেন? সই যাতে নকল করতে […]

অংঝং টিভি

সর্দারজির বাড়িতে বেড়াতে গেছেন তাঁর এক বন্ধু। গিয়ে দেখেন সর্দারজি সারা ঘর আতিপাতি করে কী যেন খুঁজছেন। বন্ধু বললেন, কী খুঁজছো হে? সর্দারজি বললেন, লুকানো ক্যামেরা। চোখ কপালে তুলে বন্ধু বললেন, বলো কি! তোমার ঘরে লুকানো ক্যামেরা লাগাল কে? সর্দারজি: ওই টেলিভিশন চ্যানেলওয়ালারা। বন্ধু: কী করে বুঝলে? সর্দারজি: একটু পরপরই বলে, ‘আপনারা দেখছেন অংঝং টিভি।’ […]

Page 1 of 712345...Last »